Bangla24.Net

শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

একুশে পদক পেতে পারেন যারা

ছবি : সংগৃহিত

বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ এবার দেশের ১৯ বিশিষ্ট নাগরিক ও ২ প্রতিষ্ঠানকে একুশে পদক ২০২৪ দেয়া হতে পারে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে প্রতি বছর বিভিন্ন ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় পুরস্কার হিসেব একুশে পদক প্রদান করা হয়।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, এবার একুশে পদক পেতে পারেন ১৯ বিশিষ্ট নাগরিক ও দুটি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণের জন্য মরণোত্তর একুশে পদক পেতে পারেন তিনজন। তারা হলেন-হেমায়েতউদ্দিন আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাতেম আলী মিয়া ও অধ্যাপক সৈয়দ আবদুস সাত্তার। প্রতিষ্ঠান হিসেবে মুক্তিযুদ্ধ ক্ষেত্রে ১৯৭১ : গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর।

শিল্পকলায় বিভিন্ন বিভাগে একুশ পদক দেয়া হয়। এবার নাটকে একুশে পদক পেতে পারেন ম. হামিদ। সংগীতে তিনজনের একুশে পদক পাওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। এর মধ্যে অ্যান্ড্রু কিশোর মরণোত্তর। অন্য দুজনের মধ্যে রয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণী ঘোষ ও মো. ইয়াকুব আলী খান। অভিনয়ে একুশে পদক পেতে পারেন ডলি জহুর। নৃত্যে শিবলী মোহাম্মদ। আবৃতিতে খান মো. মুস্তাফা ওয়ালিদ (শিমূল মুস্তাফা)। আলোকচিত্রে নাসির আলী মামুন।

গবেষণায় একুশে পদক দেয়া হতে পারে অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেনকে। শিক্ষায় ড. রংগলাল সেন (মরণোত্তর) এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ। সাংবাদিকতায় মনজুরুল আহসান বুলবুল। গত বছরও তাকে বাছাই কমিটি মনোনয়ন দিয়েছিল। সমাজসেবায় পেতে পারেন সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন (মরণোত্তর)।

সাহিত্য ক্ষেত্রে চারজনকে এবার একুশে পদক দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তারা হলেন-নাসরিন জাহান, মারুফুল ইসলাম, মিনার মনসুর ও রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ (মরণোত্তর)।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য এই ১৯ বিশিষ্ট নাগরিক ও দুটি প্রতিষ্ঠানের নাম পাঠানো হয়েছে। তালিকাটি আগামী রোববার অনুমোদন পেতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে আভাস পাওয়া গেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একুশে পদকপ্রাপ্তদের আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি সুবিধাজনক সময়ে পদক প্রদান করবেন। একুশে পদকের অর্থমূল্য নগদ ৪ লাখ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণপদক এবং সম্মাননা হিসেবে একটি রেপ্লিকা।

সৌজন্যে : সময়ের আলো

শেয়ার