Bangla24.Net

বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ , ৮ ফাল্গুন ১৪৩০

গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষাকে মর্যাদা দেবে ভারত, প্রত্যাশা ফখরুলের

বাংলাদেশের মানুষের গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষাকে ভারত মর্যাদা দেবে এমনটাই প্রত্যাশা করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘আমরা নিশ্চয়ই এটা আশা করবো, ভারত বাংলাদেশের মানুষের যে গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষা সেই আকাঙ্ক্ষাকে মর্যাদা দেবে। এই দেশে সত্যিকার অর্থেই সকল দলের অংশগ্রহণে, সকলের সদিচ্ছায় একটি নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যাপারে তারা পূর্ণ সমর্থন জ্ঞাপন করবে।’

শনিবার (১৯ আগস্ট) জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণের পর বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত ‘ভারতের কুটনৈতিক বার্তা’র বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে বিএনপি মহাসচিব এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের মানুষের আস্থার ওপরে আস্থা রাখি, তাদের শক্তির ওপর আস্থা রাখি। আমি মনে করি, ভারত দেখবে বাংলাদেশের মানুষ কী চায়? বাংলাদেশের মানুষের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যদি তারা (ভারত) কোনও পদক্ষেপ নেয় সেটা হবে অত্যন্ত দুঃখজনক এবং সেটা বাংলাদেশ এবং এই অঞ্চলের মানুষের জন্যও শুভ হবে না বলে আমরা মনে করি।’

গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা পত্রিকায় দেখলাম আজ ডয়েচে ভেলের বরাত দিয়ে রিপোর্ট করা হয়েছে। এটা যদি সত্যি হয়ে থাকে তাহলে খুবই দুর্ভাগ্যজনক। আজ বাংলাদেশে যে সংকট তার মূল কারণ হলো, এই অবৈধ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার চেষ্টা। গত ১৫ বছরে মানুষের ওপর অকথ্য নির্যাতন করা হয়েছে রাষ্ট্রকে দিয়ে, দেশে একটা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস গড়ে তোলা হয়েছে। সেখানে ভারতের মতো একটি গণতান্ত্রিক দেশ, যারা গণতন্ত্রের কথা বলে সবসময়, গণতন্ত্র আপহোল্ড করার চেষ্টা করে, তাদের কাছে এটা অপ্রত্যাশিত যদি এই নিউজটা সত্যি হয়ে থাকে।’

মৌলিবাদীদের ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা নাই

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা একথা খুব স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, বাংলাদেশে কোনও মৌলবাদী দল ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা নাই। বাংলাদেশের ৫২ বছরের ইতিহাসে দেখা গেছে কখনোই কোনও মৌলবাদী দল ক্ষমতায় আসতে পারেনি। বরঞ্চ তাদের যে শক্তি সেই শক্তি ক্ষীয়মান হয়ে এসেছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই সরকার অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশের অর্থনীতিকে ধবংস করেছে, সম্ভাবনাকে ধবংস করেছে এবং এখন মানুষকে জিম্মী করে একটা রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে।’

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকাল সাড়ে ১০টায় সংগঠনটির সভাপতি এসএম জিলানি ও সাধারণ সম্পাদক রাজীব আহসানের নেতৃত্বে নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে এবং তার আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাতেও অংশ নেন মির্জা ফখরুল।

এ সময় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, যুব দলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক বিষয় সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, সহ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, স্বেচ্ছাসেবক দলের ইয়াসিন আলী, নাজমুল হাসানসহ সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

শেয়ার