Bangla24.Net

বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডি মারিয়ার গোলে চ্যাম্পিয়ন বেনফিকা

দলবদলে জুভেন্তাস থেকে ফ্রি এজেন্ট হিসেবে বেনফিকায় নাম লেখান আনহেল ডি মারিয়া। পর্তুগালের ক্লাবটির হয়ে প্রথম ম্যাচে খেলতে নেমেই বিশ্বকাপজয়ী এই আর্জেন্টাইন দারুণ এক গোল করেছেন। যার ওপর ভর করে পতুর্গিজ সুপার কাপের শিরোপা জিতেছে বেনফিকা।

গতকাল (বুধবার) আভেইরো মিউনিসিপ্যাল স্টেডিয়ামে পর্তুগালের জায়ান্ট ক্লাবটি সুপার কাপের ফাইনালে পোর্তো এফসির মুখোমুখি হয়েছিল। ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের ব্যবধানে জিতে নেয় ডি মারিয়াদের বেনফিকা। ম্যাচসেরাও হয়েছেন এই আর্জেন্টাইন তারকা। ডি মারিয়া খেলেছেন স্বদেশি সতীর্থ নিকোলাস ওটামেন্ডির অধিনায়কত্বে।

চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইয়ে প্রথমার্ধে কোনো দলই গোল করতে পারেনি। এরপর ম্যাচের ৬১তম মিনিটে বেনফিকাকে প্রথম লিড এনে দেন ডি মারিয়া। অর্কুন কোকসুর বাড়ানো বল তিনি পোর্তোর ডি-বক্সের ভেতরে পেয়ে যান। সেখান থেকে বাঁ-পায়ের দারুণ শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করে বল জালে পাঠান ৩৫ বছর বয়সী এই তারকা। এরপর ব্যবধান দ্বিগুণ করতে তেমন সময় লাগেনি বেনফিকার। সাত মিনিট পরই তাদের জয় নিশ্চিতকারী গোলটি করেন ক্রোয়েশিয়ার ফরোয়ার্ড পিটার মুসা।

এরপর পোর্তো ব্যবধান কমানো তো দূরে থাক, উল্টো ম্যাচের শেষ মিনিটে লাল কার্ড খেয়ে বসেন ডিফেন্ডার পেপে। প্রতিপক্ষ ফুটবলারকে পেছন থেকে লাথি মারায় রেফারি কার্ড দেখাতে দেরি রেননি। পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার আগেই ডি মারিয়ার সাবেক এই রিয়াল মাদ্রিদ সতীর্থ ড্রেসিংরুমে ফিরে যান।

এদিকে, ফাইনাল ম্যাচ মানেই নিজেকে মেলে ধরার সময় ডি মারিয়ার। দারুণ নৈপুণ্যে তিনি ২০০৮ সালের বেইজিং অলিম্পিকে ফুটবল ইভেন্টের ফাইনালে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে গোল করেছিলেন। এর মাধ্যমে স্বর্ণপদক জিতে নেয় আর্জেন্টিনা। সর্বশেষ (২০২১ সালে) কোপা আমেরিকার ফাইনালও ডি মারিয়ার প্রতিভার দেখানোর আরেকটি মঞ্চ। ব্রাজিলের বিপক্ষে তার গোলেই লিওনেল মেসিরা শিরোপা জিতেছিলেন। এছাড়া ফিনালিসিমায় ইতালির বিপক্ষেও এবং কাতার বিশ্বকাপের ফাইনালেও আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় গোলটি ডি মারিয়ার পা থেকে এসেছিল।

শেয়ার