Bangla24.Net

শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডিজিটাল হচ্ছে সিলেট বেতার কেন্দ্র

ফাইল ছবি

বাংলাদেশ বেতার সিলেট কেন্দ্র ডিজিটাল হচ্ছে। এ কেন্দ্রটির আধুনিকায়ন ও ডিজিটাল সম্প্রচার যন্ত্রপাতি স্থাপনের জন্য নতুন করে টাকা চেয়েছে বাংলাদেশ বেতার। সিলেট কেন্দ্র ডিজিটালাইজেশন ও আধুনিকায়ন প্রকল্পের আওতায় নতুন করে এ টাকা চাওয়া হয়েছে।

একই সঙ্গে প্রকল্পের মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে অনেক পণ্যের মূল্য অনুমাননির্ভর উল্লেখ করে সম্মানি, মনোহারি, আপ্যায়নসহ বিভিন্ন খাতের ব্যয় প্রস্তাব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে পরিকল্পনা কমিশন। মূল প্রকল্পের ব্যয় ৫৬ কোটি ২২ লাখ টাকা হলেও এখন নতুন করে ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে ১০১ কোটি ১৯ লাখ টাকা।

প্রস্তাবিত নানা ব্যয় নিয়ে প্রশ্ন তুলে পরিকল্পনা কমিশন মতামত দিয়ে জানায়, ভ্রমণভাতা খাতে পাঁচ লাখ ৮৫ হাজার, ইন্স্যুরেন্স ও ব্যাংক খাতে ১৮ লাখ, কমিশন/ইন্টারেস্ট খাতে ২০ লাখ, প্রচার ও বিজ্ঞাপন খাতে পাঁচ লাখ, আপ্যায়ন খাতে তিন লাখ ৭৫ হাজার, পরিবহন খাতে ১২ লাখ ৬৫ হাজার টাকার খরচের বিষয়ে বিস্তারিত জানার দরকার।

সম্মানি খাতে ১০ লাখ, হায়ারিং চার্জ খাতে ১৭ লাখ ২০ হাজার, অন্য মনোহারি খাতে পাঁচ লাখ, ব্যবহার্য দ্রব্যাদি খাতে তিন লাখ, আসবাবপত্র খাতে ৪৫ লাখ ৮৭ হাজার, অন্য ভবন ও মেরামত খাতে এক কোটি ৭২ লাখ ৩৬ হাজার, সিডি ভ্যাট খাতে ১০ কোটি ১৪ লাখ ৭২ হাজার টাকা প্রাক্কলিত ব্যয় বাড়ানোর যৌক্তিকতা নিয়ে আরও আলোচনা প্রয়োজন।

পরিকল্পনা কমিশন আরও জানায়, অর্থায়নের ধরনের ক্ষেত্রে ডিপিপিতে (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা) উল্লেখিত ছক সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে। লগফ্রেম সঠিকভাবে প্রণয়ন করা হয়নি। যথাযথভাবে লগফ্রেম প্রণয়ন করতে হবে।

পরিকল্পনা কমিশনের প্রশ্ন তোলা প্রসঙ্গে প্রকল্পের পরিচালক জিল্লুর রহমান বলেন, ‘নতুন করে অনেক কিছু কেনাকাটার প্রস্তাব করেছি। সরকার যদি চায় অনুমোদন হবে, না চাইলে হবে না।’

শেয়ার