Bangla24.Net

বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ , ৮ ফাল্গুন ১৪৩০

দেশে ফিরলেন তিন হাজার ২০০ হাজি

হজের আনুষ্ঠানিকতা শেষে দেশে ফিরেছেন হাজিরা। সোমবার (৩ জুলাই) সন্ধ্যা পর্যন্ত ৮টি ফ্লাইটে সৌদি আরব থেকে ফিরেছেন ৩২০০ জন হাজি। রবিবার (২ জুলাই) সন্ধ্যায় প্রথম ফিরতি হজ ফ্লাইট দেশে আসে।

হাজিদের সুবিধার্থে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আলাদা কাস্টমস জোন করা হয়েছে। একই সঙ্গে বিমানবন্দরে প্রত্যেক হাজিকে ৫ লিটার জমজমের পানি সরবরাহ করা হচ্ছে।

এয়ারলাইনগুলো জানিয়েছে, সৌদি কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী হাজিরা ব্যক্তিগতভাবে নিজেদের সঙ্গে জমজমের পানি পরিবহন করতে পারবেন না। এয়ারলাইনের পক্ষ থেকে তা পরিবহন ও বিতরণ করা হবে। নিয়ম অনুযায়ী প্রতি হাজিকে ৫ লিটার করে জমজমের পানি দেশে বিমানবন্দরে সরবরাহ করা হচ্ছে।

হাজিদের বিমানবন্দরে নির্বিঘ্ন সেবা প্রদানের জন্য টাস্কফোর্স করা হয়েছে বলে জানান বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান। তিনি বলেন, হাজিরা যেন দ্রুত বিমানবন্দরে সেবা পান তা নিশ্চিত করা হচ্ছে। টাস্কফোর্সের মাধ্যমে পুরো কার্যক্রম মনিটরিং করা হচ্ছে।

বিমানবন্দরের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক উইং কমান্ডার মিরান হোসেন বলেন, রোববার ফ্লাইনাস এয়ারলাইনসের বিমানে ৩৩৫ জন হাজি আসার মধ্য দিয়ে হাজিরা আসা শুরু হয়েছে। বিমানবন্দর থেকে জমজম কূপের পানি সংগ্রহ করতে প্রত্যেক হাজিকে একটি টোকেন দেওয়া হয়েছে। হাজিদের সুবিধার্থে বিমানবন্দরের গ্রিন চ্যানেল গেটের সামনেই মজুদ রাখা হয় জমজম কূপের পানি। পানি বিতরণের জন্য রয়েছেন এয়ারলাইন্সগুলোর প্রতিনিধিরা। ফ্লাইট থেকে নামার পর লাগেজ নিয়ে বিমানবন্দরের গ্রিন চ্যানেল গেট দিয়ে বের হওয়ার সময় টোকেন জমা দিয়ে পানি সংগ্রহ করতে পারবেন দেশে ফেরা হাজিরা।

এ বছর হজ অনুষ্ঠিত হয় ২৭ জুন। বাংলাদেশ থেকে ব্যবস্থাপনা সদস্যসহ ১,২২,৮৮৪ জন হাজি সৌদি আরবে যান। বাংলাদেশ থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, সৌদি এয়ারলাইন্স, ফ্লাইনাস হজযাত্রী পরিবহণ করছেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ১৫৯টি ফ্লাইটে ৬১,১৮০ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছে দেয়। সৌদি এয়ারলাইন্স পরিবহন করেছে ১১৩টি ফ্লাইটে ৪১,৪৬৮ জন হজযাত্রী। ফ্লাইনাস পরিবহন করেছে ৫৩টি ফ্লাইটে ২০ হাজার ২৩৬ জন হজযাত্রী। সৌদিতে হজ করতে গিয়ে মোট ৬০ জন মারা গেছেন। হজ যাত্রীদের ফিরতি শেষ ফ্লাইট হবে ২ আগস্ট।

শেয়ার